Monday , 21 May 2018
Breaking News
Home » সুপারভিলেন অরিজিন » সুপারভিলেন অরিজিন : Steppenwolf

সুপারভিলেন অরিজিন : Steppenwolf

আজ কথা বলবো ডিসির ভয়ংকর ভিলেন স্টেপেনউলফকে নিয়ে

স্টেপেনউলফ হচ্ছে আমেরিকান কমিক্স প্রকাশক ডিসি কমিক্সের একটি কাল্পনিক চরিত্র। ১৯৭২ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে কিংবদন্তী কমিক লেখক জ্যাক কিরবী তার লেখা নিউ গডস সিরিজের সপ্তম ইস্যুতে এই চরিত্রটিকে প্রথম নিয়ে আসেন।

1

Supervillains Origin : Steppenwolf

স্টেপেনউলফের জীবন সম্পর্কে বেশি কিছু জানা যায়নি। তাকে সরাসরি গল্পে দেখা গিয়েছে খুব কম, শুরুর দিকে তাকে বিভিন্ন অতীতে ঘটে যাওয়া দৃশ্যে দেখানো হতো। অ্যাপোকলিপ্সের শাসক ইয়ুগা খান সোর্স ওয়ালে বন্দি হওয়ার পর সেখানকার সম্রাজ্ঞী হিসেবে প্রতিষ্ঠিতা হয় ইয়ুগার স্ত্রী হেগ্রা। হেগ্রা তার ভাই স্টেপেনউলফকে সেনাপতি হিসেবে নিযুক্ত করে। হেগ্রার শাসনামলে গুণধর পুত্র ডার্কসাইড নিজের তৈরী করা সৈন্যদল দিয়ে নিউ জেনেসিসে আক্রমণ চালিয়ে সাধারণদের শিকার করার আনন্দ পাওয়ার জন্য স্টেপেনউলফকে বলে আর সে রাজী হয়।

মামা-ভাগিনার সৈন্যদল শুরুতে ‘উত্তরাধিকার’ ইজায়ার উপর আক্রমণ করে বসে। এভিয়া এসে বাঁচাতে গেলে স্টেপেনউলফ তাকে পেছন থেকে প্রচণ্ডভাবে রেডিওন দিয়ে আঘাত করে। সে জানতোনা এভিয়া হলো ইজায়ার স্ত্রী। তখন ডার্কসাইড এভিয়াকে নিজের কীলিং গ্লাভ দিয়ে হত্যা করে ফেলে। এরপরই মামা-ভাগিনা নিউ জেনেসিস ত্যাগ করে চলে যায়।

নিজের স্ত্রীর মৃত্যুর প্রতিশোধ নিতে ইজায়া নিউ জেনেসিসের সৈন্যদল নিয়ে চলে আসে অ্যাপোকলিপ্সে, দুই বৈরী গ্রহের মধ্যে লাগে তুমুল যুদ্ধ। ডার্কসাইড স্টেপেনউলফকে নিউ জেনেসিসের হামলা ঠেকানোর দায়িত্ব দেয়, বানায় ডগ ক্যালভারির অধিনায়ক। কিন্তু স্টেপেনউলফ হাইফাদারের কাছে পরাজিত হয় এবং মৃত্যুবরণ করে। প্রকৃতপক্ষে ডার্কসাইড মায়ের থেকে বিনাবাধায় ক্ষমতা দখল করে নেওয়ার জন্য এই কাজটি করেছিলো। এরপর ডেসাডের সহায়তায় সে আবার পুনর্জন্ম নেয় এবং পরবর্তীকালে নিজের ভাগিনার আদেশে তার সৈন্যদলের সর্বাধিনায়ক হিসেবে যোগদান করে।

a
ক্ষমতা-

*নিউ গডদের দৈহিক গড়ন- স্টেপেনউলফের উদ্ভব অ্যাপোকলিপ্স নামক একটা নারকীয় গ্রহ থেকে যার নেতৃত্বদানকারী লোকেরা নিজেদের গড বলে দাবি করে। এই গ্রহ মহাবিশ্বের সাধারণ স্থান ও কাল থেকে বাইরে অবস্থান করে। তাদের সমস্ত ক্ষমতা আসে স্বয়ং সোর্স থেকে যারফলে তারা অত্যন্ত শক্তিশালী। তাদের অতিমানবিক ক্ষমতাগুলো হলো:

-শক্তিমত্তা
-দ্রুততা
-ক্ষ্রিপ্ততা
-স্থায়িত্ব
-দুর্বলতাহীন: স্টেপেনউলফ বেশিরভাগ শক্তির বিকিরণের ক্ষতি থেকে মুক্ত।
-অমরত্ব: অ্যাপোকলিপ্সের দীর্ঘায়ত জীবন তাকে করেছে প্রায় অমর। তার দেহে বয়সের ছাপ পড়েনা।

একনজর-

নাম- স্টেপেনউলফ
আত্মীয়- হেগ্রা খান (বোন)
ইয়ুগা খান (দুলাভাই)
ডার্কসাইড (ভাগিনা)
অরিয়ন (নাতী)
সংযুক্তি- ডার্কসাইড এলিট
বেজ- অ্যাপোকলিপ্স

পরিচয়- পাবলিক
জাত- নিউ গড
নাগরিকত্ব- অ্যাপোকলিপ্টান
বৈবাহিক অবস্থা- অবিবাহিত
পেশা- সেনানায়ক

লিংগ- পুরুষ
উচ্চতা- ৬ ফুট
ওজন- ২০৩ পাউন্ড (৯২ কেজি)
চোখ- লাল
চুল- কালো
দেহ- সাদা

টিভিয়া-

*স্টেপেনউলফ একবার ডুমসডে এর হামলা থেকে বেচে ফিরেছে। এমনকি ডার্কসাইডের সাথে প্রায় হয়ে যাওয়া ফাইটও ঠেকিয়ে দিয়েছিলো।

*নিউ ৫২ স্টোরিলাইনে মাল্টিভার্সের ২ নম্বর মহাজগতে সে পুরো পৃথিবী প্রায় একাই দখল করে ফেলে। এমনকি সে এখানকার ওয়ান্ডার ওম্যানকেও খুন করে ফেলে। এখানে তার কন্যা ডোনা ট্রয় একজন আমাজনিয়ান।

*১৭ নভেম্বর, ২০১৭ সালে মুক্তি পাওয়া ডিসির জাস্টিস লীগ সিনেমার প্রধান খলচরিত্রে দেখা যাবে স্টেপেনউলফকে। গেম অভ থ্রোন্স খ্যাত আইরিশ অভিনেতা শিয়ারান হিন্ডস এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

*শিয়ারান হিন্ডসে চরিত্রটিকে সঠিকভাবে রূপায়িত করতে লিয়াম নেসন অনেক সহযোগিতা করেছেন।

*এপর্যন্ত যেসব অ্যানিমেশনে স্টেপেনউলফকে দেখা গিয়েছে:

-সুপারম্যান
-জাস্টিস লীগ
-ব্যাটম্যান: দ্য ব্রেইভ অ্যান্ড দ্য বোল্ড

– ধন্যবাদ।

সুপারভিলেন অরিজিন লিখেছেনঃ ‎Ahmed Munna

আজ কথা বলবো ডিসির ভয়ংকর ভিলেন স্টেপেনউলফকে নিয়ে স্টেপেনউলফ হচ্ছে আমেরিকান কমিক্স প্রকাশক ডিসি কমিক্সের একটি কাল্পনিক চরিত্র। ১৯৭২ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে কিংবদন্তী কমিক লেখক জ্যাক কিরবী তার লেখা নিউ গডস সিরিজের সপ্তম ইস্যুতে এই চরিত্রটিকে প্রথম নিয়ে আসেন। Supervillains Origin : Steppenwolf স্টেপেনউলফের জীবন সম্পর্কে বেশি কিছু জানা যায়নি। তাকে সরাসরি গল্পে দেখা গিয়েছে খুব কম, শুরুর দিকে তাকে বিভিন্ন অতীতে ঘটে যাওয়া দৃশ্যে দেখানো হতো। অ্যাপোকলিপ্সের শাসক ইয়ুগা খান সোর্স ওয়ালে বন্দি হওয়ার পর সেখানকার সম্রাজ্ঞী হিসেবে প্রতিষ্ঠিতা হয় ইয়ুগার স্ত্রী হেগ্রা। হেগ্রা তার ভাই স্টেপেনউলফকে সেনাপতি হিসেবে নিযুক্ত করে। হেগ্রার শাসনামলে গুণধর পুত্র ডার্কসাইড নিজের তৈরী করা…

Review Overview

User Rating: 4.9 ( 1 votes)
0
Do you like this post?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid

About Admin