Monday , 21 May 2018
Breaking News
Home » মতামত » The Shape of Water কেন অস্কার পেল?

The Shape of Water কেন অস্কার পেল?

অস্কার পাওয়ার পর থেকে বিভিন্ন গ্রুপে একটাই রব এই মুভি কেন অস্কার পাইল? বিভিন্ন পোস্টের মন্তব্য গুলো ঘুরে ঘুরে দেখালাম বেশির ভাগই আজে বাজে কথা। কেন পাওয়া উচিত ছিল না সেই বিষয়ে একটিও সঠিক যুক্তি নেই। মজার বিষয় হল অনেকেই তাদের মন্তব্যের সাথে তিনটা শব্দ যুক্ত করেছেন। “*আমি বুঝালাম না” বা “**আমি জানি না” এই দুইটি বাক্য মনে রাখবেন লেখার শেষে এর ব্যাখ্যা দিব।

Kai Po Che

🚫লেখায় spoiler আছে so যারা মুভি দেখেন নি তারা মুভি দেখে লেখাটি পড়ুন।

যদিও আশা করছি যারা লেখাটি পড়ছেন সবাই সিনেমা টি দেখেছেন তারপরেও কাহিনী সংক্ষেপে একটু বলে নেই কারণ অনেকেরই ১৮+ সিন দেখে কাহিনীর দিক থেকে মনোযোগ সরে জেতেও পারে।

গল্পটি খুব সাধারণ (সর্বসাধারণের মতে)। ১৯৬২ সাল আমেরিকা ও রাশিয়ার মাঝে যুদ্ধ লাগে লাগে অবস্থা। দুই দেশই বিভিন্ন রকম অস্ত্র বানানোতে লেগে আছে। কে কার চেয়ে শক্তিতে এগিয়ে সেই প্রদর্শনীতে ব্যস্ত। সেই সময় এলাইজা নামের একজন অবিবাহিত শ্বেতাঙ্গ মেয়ে একটি গোপন সরকারি ল্যাবরেটরিতে পরিচ্ছন্ন সহায়ক হিসেবে কাজ করেন। ছোটবেলায় দুর্ঘটনায় এলাইজা তার বাকশক্তি হারিয়ে-ফেলে(তার গলায় দাগ দেখে ধারণা করা হয় কেউ তাকে হত্যা করতে গলা চেপে ধরেছিল)। একদিন সেই ল্যাবে এক আজব প্রাণীকে ধরে আনা হয়। এমাজনের জঙ্গলে এই প্রাণীর বসবাস এবং সেখানে তাকে পানির ঈশ্বর বলা হয়। প্রথম দেখাতেই এলাইজা হতবাক। যেহেতু এলাইজা বাকশক্তি হীন তাই তাকে ইশারায় কথা বলতে হয়। আর সেই পন্থা কাজে লাগিয়ে এলাইজা এই আজব প্রাণী বা কারো কারো ভাষায় দানবের সাথে যোগাযোগ তৈরি করতে সক্ষম হয়। তারপর প্রেম রোমান্স ভাবের আদান প্রদান। একদিন এলাইজা জানতে পারল একে আর জীবিতা রাখা হবে না। এর ভেতরের কলকব্জা কিভাবে কাজ করে তা জানার জন্য একে কেটে কুটে দেখা হবে। নিজের ভালবাসার মানুষকে মানে প্রাণীকে কেউ কেটে কুটে দেখবে ব্যাপারটা বেদনা দায়ক তাই সে ঠিক করল এই সবুজ জল দানবকে নিয়ে পালাবে। ব্যাস যে কথা সেই কাজ একদিন সুযোগ বুঝে তারা ভালবাসার মাছ কে নিয়ে পালাল এলাইজা। আর এতে তাকে সাহায্য করল এক রাশিয়ান ডাক্তার ও গুপ্তচর, এক কৃশাঙ্গ মেয়ে ও এক সমকামী প্রচার পরিচালক জার কাজ এখন সবার কাছে পুড়ান মনে হয়।
পালিয়ে গেলেই কি হয়? এই গল্পের খলনায়ক অ ত আছে। সে কি আর ছেরে দেবে? সে পিছু নীল আর বের করল এলাইজা সেই মৎস্য মানব কে সমুদ্রে ছেরে দিতে যাচ্ছে। শুরু হল ছুট ছুটি একশন গুলিও চলল তারপর সেই মৎস্য মানব মৃত প্রায় মানবিকে নিয়ে সমুদ্রে চলে গেল। তারপর সিনেমার নাম পর্দায় আসল “The Shape of Water”. কেউ ভেবেছেন? কেন সিনেমার নাম সিনেমার শেষে দেখানো হল? ভাবেন নি না? ভাববেন কি করে? ভাবনা যে নায়িকার নগ্ন শরীরেই আটকে ছিল।

🔇হইল! এটা কোন কাহিনী হল? কি বিচ্ছিরি মাছের সাথে sex! সাদামাটা একমুখী কাহিনী। too much predictable. আমার এমবি ফেরত দেন। ফালতু মুভি, worst movie, ভদ্র পর্ণ। বিভিন্ন পোস্টের মন্তব্যের এই হল কিছু স্যাম্পল। কিন্তু যখন দেখলাম একজন মোটামুটি ভাল মানের সিনেমা দর্শক এই সিনেমা সম্পর্কে নেগেটিভ পোস্ট করল তখন মনে হল নাহ আমিও কিছু লেখি।

ভেবেছিলাম অনেক কিছু লিখব কিন্তু প্রোক্ষণেই মনে হল কোন লাভ নেই যারা খারাপ বলেছে তাদের হাজার চেষ্টা করেও ভাল লাগানো যাবে না। কিন্তু যারা মোটামুটি বলেছেন কিন্তু কোন কারণে সিনেমার মুল কথা মিস করে গেছেন তাদের যদি একটু মত ঘুরানো যায়।

🗣দেল তোরর অনবদ্য এক সৃষ্টি The Shape of Water. সিনেমার ভাল প্রিন্ট আসার পর পরই অনেকে সিনেমাটি দেখেছেন। আর বেশির ভাগ দেখা শুরু-করেছেন যখন সিনেমাটির পরিচালক গোল্ডেন গ্লোব পেল। আর আপামর জনসাধারণ দেখা শুরু করে অস্কারের পর। শুরুর দিকেই একটা রব উঠে এটি টম হ্যাঙ্কস এর স্প্লেশ সিনেমার নিকল। অনেকে মিম বানিয়ে কম্পেয়ার করেও দেখিয়েছেন। তাদের উদ্দেশ্যে বলি এটি স্প্লেশ সিনেমার নকল না। এটি মোটামুটি ১০-১২ টি সিনেমার “নকল”। এই সিনেমার প্রতিটা চরিত্র বা প্লট অই সকল সিনেমার আদলে তৈরি করা। এই বিষয়ে এক আলোচনা অনুষ্ঠানে দেল তোর বলেন “I wanted to make a movie, in Love with love and in love with cinema”. কি করে তা হল? কয়েকটি উদাহরণ দেই তবে কিছুটা ধারণা হবে। সিনেমার প্লট অনেকটা বিউটি অ্যান্ড দা বিস্ট এর মত। জি না ডিজনির টা না ১৯৪৬ সালে ককতোস পরিচালিত সিনামটির মত। মৎস্য মানব কে তৈরি করা হয়েছে Creature from the black lagoon সিনেমার দানবের মত যে কিনা এক সুন্দরিকে অপহরণ করে একই রকম এক ল্যাব থেকে পালিয়ে যায়। এলাইজার চরিত্র অনেকটা my fair ladyর এলাইজার মত আর ভিলেন হল নেগেটিভ ভার্শন অফ প্রফেসর হ্যানরি হিগেন্স। এমনি আরও অনেক অনেক অনেক সিনেমার ছাপ ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে পুর সিনেমা জুরে। এর মাঝে কিছু আছে প্লট বুঝানোর জন্য। তাই যারা প্লট দুর্বল বলছেন তারা সিনেমা গুলির সাথে মিলিয়ে দেখতে পারেন। তালিকা নিম্নে দেয়া হল।

Movies:
Frankenstein
Splash
Shrak
The little colonel
Cony Island
That night in reo
Story of roth
Semsan and dellila
Songs
Glan meller
Beny goodman
Tv shows
Mister ed
The many love of dobie gillis
দেল তোর এই সিনেমার মাধ্যমে নিজের এবং আমাদের মত মুভি ফ্রিকদের সিনেমার প্রতি ভালবাসাটা তুলে ধরেছেন। এখন আপনি যদি একজন মুভি লাভার হয়ে এই মুভিকে ফালতু বলে থাকেন তবে আপনি আসলে বলতে চাচ্ছেন আপনি ফালতু জিনিসের লাভার। যাক সেটা আসলে যার যার ব্যাপার।

🗣এখন আসি দ্বিতীয় টপিকে The Others. এই the others নিকোল কিডমেন অভিনীত হরর সিনেমা না। এই Others হল একটা concept. এই concept যদি আপনার মস্তিষ্কে না থাকে তাহলে এই সিনেমার মুল বার্তা পানিতে গুলায় দিলেও আপনার গলা দিয়ে নামবে না। এবং মজার বিষয় হল এই concept আপনার মাথায় থাকার কথাও না। এই concept একমাত্র আমেরিকানরাই বুঝতে পারবে। কারণ এটি সম্পূর্ণ অর্থেই তাদের বিষয়। American White straight Male বাদে যারা আছে তাদের বলা হয় Others. Concept এর মুল উৎপত্তি কোথায় তা খুঁজে বের করার চেষ্টায় আছি। তাই জিজ্ঞেস করলে আপাতত বলতে পারব না। কি করে এই কন্সেপ্ট এই সিনেমার সাথে জড়িত? সিনেমার সময় ১৯৬২ আমেরিকাতে তখন কৃষ্ণাঙ্গদের নাগরিক অধিকার সীমিত। নারীদের ভোট দেয়ার অধিকার নেই, সমকামিতা এক জঘন্য অপরাধ। আর প্রবাসীরা ত মোটামুটি শত্রু। আর দানব; দানব হচ্ছে a misunderstood god. এখন সকল চরিত্র গুলি মিলিয়ে দেখুন। দেল তোর সিনেমার প্রিমিয়ার শো শেষ হবার পরে এক সাংবাদিক কে বলেনঃ “It’s a movie about love and about loving the other and not being afraid of the other”। “NOT BEING AFRAID OF THE OTHER” এই সিনেমার আরেকটি মুল বিষয়। এলাইজা, জেলডা, গিলস, প্রফেসর দানব এরা কেউই একে অপরকে ভয় পায় না। কিন্তু রিচার্ড সে কিন্তু এদের কে দমন নিপীড়ন করে চলতে চায়। কেন কারণ আমেরিকানদের সেই আসল পাপ এর ভয় থেকে। যা শত শত বছর যাবত তাদের তারিয়ে বেড়াচ্ছে। রেড ইন্ডিয়ান।
আরও অনেক এমন বড় বিষয় আছে যেমন শ্বেতাঙ্গ দের তৈরি করা হয়েছে ঈশ্বরের আদলে কিন্তু তারাই একটি ভুল কাজ করছে দানব বা অন্য ঈশ্বরকে মারার চেষ্টা করে। কিন্তু মানুষ রুপি Other রা তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করছে। যা হচ্ছে the symbol of fallen god. আরও অনেক কিছু যা লিখতে থাকলে আগামী বই মেলায় ছাপানোর পাণ্ডুলিপি হয়ে যাবে।

🗣Last but not least “LOVE”
There’s no doubt that it’s a movie about love. The previous to statement I quoted from Del toro’s speech was about love. যদি শুধু রোমান্টিক মুভি হিসেবেও দেখা হয় এটি একটি অনবদ্য রচনা।
দেল shape of water কে Adult Fairy tale হিসেবে আক্ষাইত করেছেন. Adult শব্দ টা শুনেই সেই দৃশ্যের কথা মনে পরে গেল তাই না? হ্যাঁ এটি একটি বড়দের জন্য রূপ কথার গল্প কিন্তু সাথে আবার একটা কিন্তু রয়েছে। রূপ কথার গল্প গুলিতে কি হয়? একটা সুন্দর রাজকুমারী থাকে যার রূপে গুনে সবাই মুগ্ধ হয়ে থাকে আর থাকে এক অমানবিক রাজকুমার অথবা এই দুইয়ের উলটটা। গল্পের শেষে সেই রাজকুমার বা রাজকুমারী কে গল্পকার ভালবাসার শক্তিতে মানব জগতে ফিরিয়ে আনা হয় পরিশেষে সুন্দর সমাপ্তি। কিন্তু এই গল্পের রাজকুমারী আমাদের মত রক্ত মাংসের। তার কাম জাগে, সে মুগ্ধ হয় ,রাগ করে , মায়া দেখায় আবার নতুন কিছুকে কাছে টেনেও নেয়। অন্যদিকে রাজকুমার কিন্তু আসলেই এক দানব। কিন্তু এই রাজ কুমার আর রাজকুমারীর ভালবাসা আদান প্রদান করতে কোন শারীরিক পরিবর্তনের প্রয়োজন হয় না। তারা যেমন আছে সেই অবস্থাতেই ভাবের আদান প্রদান করতে সক্ষম আর সত্যিকারের ভালবাসার এর চেয়ে বড় উদাহরণ আর কি লাগে। এলাইজা যখন গিলস কে জানায় সে কেন আসেট কে ভালবাসে, সিনেমার সেই মুহূর্তটাই যথেষ্ট অস্কার খেতাবের জন্য। “when he looks at me, the way he looks at me he doesn’t know what I lack or how I am incomplete. HE SEES ME FOR WHAT I AM AS I AM. HE IS HAPPY TO SEE ME EVERY TIME EVERY DAY.” At this point the movie just became a good love story to a great love story. যদি কেউ আপনাকে আপনার সকল পূর্ণতা ও অপূর্ণতা সহিত গ্রহণ করে এবং তার মাঝে আপনি আনন্দের ছাপ দেখেন তবে এর চেয়ে সুন্দর সম্পর্ক পৃথিবীতে আর কিছুই হতে পারে না। এবং ভালবাসার এই সংজ্ঞাটি দেল তোর দর্শকদের অদ্ভুত এক সমিকরনের মাধ্যমে উপস্থাপন করেন।

🔈সব কথার শেষ কথা The Shape of Water is a classical Masterpiece. আমি আশা করি না যে আমার এই লেখা পড়ে আপনাদের এই সিনেমার সম্পর্কে মতামত পরিবর্তন হয়ে যাবে বা এই সিনেমা নিয়ে জয় জয়কার শুরু হয়ে যাবে। শুধু বলতে চাই এই সিনেমা নিয়ে যদি আপনার মন্তব্য শুরু হয় “আমি বুঝলাম না” বা “আমি জানি না” তাহলে দয়া করে জেনে নিন অথবা কারো কাছ থেকে বুঝে নিন। অযথা নেগেটিভ মন্তব্য করে নিজেকে হাসির পাত্রে পরিণত করবেন না। আর হ্যাঁ লেখার শুরুতে একটা প্রশ্ন করেছিলাম কেন নাম শেষে দেখান হল? যদি বের করতে পারেন জানাবেন।

ধন্যবাদ।

ফিচারটি লিখেছেনঃ ‎রকিব হাসান

অস্কার পাওয়ার পর থেকে বিভিন্ন গ্রুপে একটাই রব এই মুভি কেন অস্কার পাইল? বিভিন্ন পোস্টের মন্তব্য গুলো ঘুরে ঘুরে দেখালাম বেশির ভাগই আজে বাজে কথা। কেন পাওয়া উচিত ছিল না সেই বিষয়ে একটিও সঠিক যুক্তি নেই। মজার বিষয় হল অনেকেই তাদের মন্তব্যের সাথে তিনটা শব্দ যুক্ত করেছেন। “*আমি বুঝালাম না” বা “**আমি জানি না” এই দুইটি বাক্য মনে রাখবেন লেখার শেষে এর ব্যাখ্যা দিব। 🚫লেখায় spoiler আছে so যারা মুভি দেখেন নি তারা মুভি দেখে লেখাটি পড়ুন। যদিও আশা করছি যারা লেখাটি পড়ছেন সবাই সিনেমা টি দেখেছেন তারপরেও কাহিনী সংক্ষেপে একটু বলে নেই কারণ অনেকেরই ১৮+ সিন দেখে কাহিনীর দিক…

Review Overview

User Rating: 4.8 ( 1 votes)
0
Do you like this post?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid

About Admin