Superhero Origin : Captain Marvel – মারভেল কমিক্সের অন্যতম জনপ্রিয় ফিমেইল সুপারহিরো

1

Superhero Origin : Ms Marvel / Captain Marvel

“What are we waiting for, an army of bad guys are just waiting to be smashed!”

ক্যারল ড্যানভার্স aka Captain Marvel/Ms Marvel/Binary/Warbird মারভেল কমিক্সের অন্যতম জনপ্রিয় ফিমেইল সুপারহিরো। ১৯৬৮ সালের মার্চে Marvel Superherors #13 এ তার প্রথম আগমন ঘটে USA Air Force এর একজন সদস্য হিসেবে ‘রয় থমাস’ এর হাত ধরে। Ms Marvel হিসেবে তাকে আনা হয় ১৯৭৭ সালে Ms Marvel #1 এ।তবে তার Captain Marvel হিসেবে প্রথম অ্যাপিয়ারেন্স ২০১২ সালে Amazing Spiderman ইস্যু নাম্বার ৯ এ। এর আগে Ms Marvel,Binary,Warbird ক্যারেক্টারেও ক্যারোল ড্যানভার্স কে দেখা যায়।
a
মিস মারভেল তার পাওয়ার পায় একটি Kree Psyche-Magneton ডিভাইস এক্সপ্লোশন এর মাধ্যমে। এই এক্সপ্লোশন এর কারণে ‘Mar-vell’ ( Male Captain Marvel; Origin : Kree) এর সাথে তার জেনেটিক স্ট্রাকচার একিভূত হয়ে যায়, যার ফলে সে একজন Kree-Human হাইব্রিডে পরিণত হয়। এই ট্রান্সফরমেশন এর কারণে অতিমানবীয় শক্তি,স্ট্যামিনা তো লাভ করেই তার ওপর Kree দের সমস্ত জ্ঞান এবং ট্রেনিং তার মধ্যে চলে আসে।

ক্যারোল শুরুতে স্বল্প সময়ের জন্য ‘এভেঞ্জার্সে’ যোগ দিয়েছিলো।তার এভেঞ্জার্সে যোগ দেয়াটা খেয়াল করে মার্কাস ( টাইমকিপার এবং লিম্বোর রুলার ইমোরটাস এর ছেলে)।মার্কাস ক্রমশ মিস মারভেলের প্রতি আসক্ত হতে শুরু করে। ধীরে ধীরে তার এই আসক্তি চরম পর্যায়ে চলে যায় এবং সে ক্যারোল কে কিডন্যাপ করে। কিন্তু ইমোরটাস এর মাইন্ড ম্যানুপুলেশন পাওয়ার ইউজ করে সে এটা ক্যারোলকে বুঝতে দেয়না।।মার্কাস ‘লিম্বো’ থেকে পালানোর জন্য ক্যারোল কে প্রেগনেন্ট করে ফেলে এবং এই ছেলে বড় হয়ে মার্কাসেই পরিণত হবে।। সে এই কুকর্ম করার পর ক্যারোল কে এভেঞ্জার্সে ফিরিয়ে দেয়। ক্যারোল কিছুদিন পর ই বুঝতে পারে সে অন্তঃসত্ত্বা; অথচ বাবার নাম না জানায় সে মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে।তার অন্তঃসত্ত্বা অবস্থা কয়েকদিনের জন্য ছিলো মাত্র এরপর ই মার্কাস এর ছেলে জন্ম নেয় এবং কিছুদিনের মধ্যেই সে পূর্ণবয়স্ক মানুষে পরিণত হয়।। যেহেতু সে মার্কাসের ছেলে ছিলো তাই কোনভাবে সে ক্যারোলকে রাজি করিয়ে লিম্বো তে নিয়ে যায় মার্কাস এর কাছে। আশ্চর্যজনকভাবে এভেঞ্জার্স ও এই ঘটনার পেছনে কারণ অনুসন্ধানের বদলে তাদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বিদায় দেয়।। লিম্বো তে ফিরে যাবার কিছুদিন পরেই মার্কাস এর বয়স বেড়ে যেতে থাকে এবং সে একসময় মারা যায়।ক্যারোল বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। সে বুঝতেই পারেনা কিভাবে এভেঞ্জার্স মার্কাস এর মোটিভের ব্যাপারে কোন অনুসন্ধান না করেই তাকে এখানে পাঠিয়ে দিলো।

যাকগে,
সে লিম্বো তে থেকে ইমোরটাস এর প্রযুক্তি নিজের আয়ত্বে নিয়ে আসে এবং তার ছেলেকে লিম্বোতে ফেলে রেখে পৃথিবীতে ফিরে আসতে সক্ষম হয়। কিন্তু এভেঞ্জার্স এর প্রতি ক্ষোভের কারণে সে আর টিমে জয়েন করেনা।

এদিকে ক্যারোল এর ফিরে আসা বুঝতে পারে ‘ডেস্টিনি’ ( একজন মিউট্যান্ট যে ভবিষ্যৎ দেখতে পারে)। এই মহিলা এবার মিস্টিক এর কাছে গুটি লাগায় যে ক্যারোল এর হাতেই একটি ঘটনা ঘটবে যার পরিপ্রেক্ষিতে তার মেয়ে ‘Rogue’ মারা যাবে। ব্যস,লেগে গেলো ক্যাচাল। মিস্টিক পণ করলো যেভাবেই হোক ক্যারোলকে আগে ধ্বংস করতে হবে।এই ঘটনা ক্যারোল জানার পর সে ও তাদের প্রতি ক্ষিপ্ত হলো। ফলপ্রসূভাবে, রোগ আর মিস্টিক স্যান ফ্রান্সিস্কো তে ক্যারোলকে অ্যাটাক করে বসলো। রোগ তার পাওয়ার এবসোর্বিং এবিলিটি নিয়ে ক্যারোলের পাওয়ার নিয়ে নিতে চাইলো কিন্তু হিউম্যান-ক্রি হাইব্রিড হওয়ার কারণে ক্যারোল এর জ্ঞান এতই বেশি ছিলো যে Rogue আর সহ্য করতে পারলো না এবং সে ক্যারোলকে একটা স্ট্যাচুর ওপর থেকে ফেলে দিলো।তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে স্পাইডার ওম্যান এবং এক্স ম্যানশনে নিয়ে যায়।

এই ঘটনার কারণে ক্যারোল এর স্মৃতি বিনষ্ট হয়ে যায় যার পরিপ্রেক্ষিতে সে তার পাওয়ার ও হারিয়ে ফেলে।কিন্তু প্রফেসর জেভিয়ার তার সাহায্যে এগিয়ে আসে এবং মাইন্ড কন্ট্রোল এর মাধ্যমে তার স্মৃতি ফিরাতে সক্ষম হন।ক্যারোল এর পর মোটামুটি পারমানেন্ট হিসেবে এক্স ম্যান এ যোগ দেন।

সে এক্স ম্যান দের সাথে বিভিন্ন মিশনে যাওয়া শুরু করে এবং এরকম ই একটা মিশন থেকে তাকে কিডন্যাপ করে এলিয়েনজাতি ‘Brood’। তারা তার ওপর এক্সপেরিমেন্ট চালায় এবং যার ফলে ক্যারোল তার ক্ষমতার সর্বোচ্চ পর্যায় লাভ করে এবং সে কস্মিক পাওয়ার্ড ক্যারেক্টার Binary তে পরিণত হয়। সে আগের চেয়ে অনেক পাওয়ারফুল হয়ে ওঠে একটা হোয়াইট হ্যোল ( ব্ল্যাক হোলের বড় ভাই) এর সাথে সংযোগ থাকার কারণে।তাই স্বভাবতই Brood তাকে আটকে রাখতে অক্ষম হয় এবং সে পৃথিবীতে এক্স ম্যানশনে রিটার্ন করে।

কিন্তু সে এসে Rogue কে দেখতে পায় এবং ক্রমে জানতে পারে প্রফেসর এক্স Rogue কে থাকার অনুমতি দিয়েছেন। সে এটা মানতে পারেনা।যার কারণে সে এক্স ম্যান ত্যাগ করে এবং স্পেস পাইরেটস ‘স্টারজ্যামার্স’ এ যোগ দেয়।সে ‘বাইনারি’ ক্যারেক্টার নিয়ে স্টারজ্যামার্সের অন্যতম প্রধান হয়ে ওঠে।কিন্তু সে বুঝতে পারে তার পাওয়ার সম্পূর্ণ ভাবে কাজে লাগছে না।

সে সময় ই পৃথিবীর সূর্যকে ধ্বংস করার হুমকি আসে এবং এভেঞ্জার্স তা রক্ষা করতে আসে।এ ঘটনা শুনে এভেঞ্জার্সদের প্রতি পুরনো ক্ষোভ ভুলে ক্যারোল Quasar এ গিয়ে Earth Sun কে রক্ষা করতে সক্ষম হয়।সে আবারো এভেঞ্জার্স দের সাথে পৃথিবীতে চলে আসে। কিন্তু ওদিকে স্টারজ্যামার্স রা মনে করে তাদের সাথে গুটিবাজি।করা হয়েছে তাই তারা পৃথিবীকে আক্রমণ করতে আসে কিন্তু ক্যারোলসহিত এভেঞ্জার্সের সাথে পেরে ওঠেনা।এরপরই ক্যারোল তার তৃতীয় অল্টার ইগো Warbird ( এ সময় একটা রিয়েলিটি চেঞ্জিং ইভেন্ট ঘটে) ধারণ করে এবং এভেঞ্জার্রসে পুনরায় যোগ দেয়।

কিন্তু এরপর ক্যারোল নতুন সমস্যায় পড়ে।তার পাওয়ার আস্তে আস্তে কোন কারণে দূর্বল হয়ে যেতে থাকে।কিন্তু সে এটা এভেঞ্জার্সদের কাছ থেকে সম্পূর্ণ রূপে গোপণ রাখে, যা ক্যাপ্টেন অ্যামেরিকার সাথে তার একটা কনফ্লিক্ট তৈরী করে। সে অ্যালকোহল এর নেশায় ও জড়িয়ে পড়ে যা অ্যাল্কোহল পুনর্বাসনরত টনি স্টার্ক খেয়াল করে। এর পরিপ্রেক্ষিতে তার টিমওয়ার্ক প্রচন্ড ভাবে বাজে এবং রেকলেস হয়ে যায় এবং একটা ঘটনায় এভেঞ্জার্স দের ধ্বংসের কাছাকাছি নিয়ে যায়। এরপরে তার এভেঞ্জার্স থেকে কোর্ট মার্শাল দেওয়া হয়। সে নিজের সমস্যার কথা টিমমেমবার দের বলেনা। এসময় একদল Kree বিরোধী হয়ে ওঠে এবং এভেঞ্জার্স তাদের ঠান্ডা করতে চাঁদে যায়। ক্যারোল তাদের সাথে যেতে চায় কিন্তু সে তার ফ্লাইট ভেলোসিটি অর্জন করতে অক্ষম হয় যার কারণে লড়াইয়েও অংশ নিতে পারেনা।।।

ক্যারোল এরপর সুপারহিরো জব ছেড়ে একজন ফ্রিল্যান্সার লেখক হিসেবে নিজের ক্যারিয়ার প্রতিষ্ঠায় মন দেয়।কিন্তু তার অ্যালকোহল এডিকশন তাকে প্রায় মেরে ফেলে এবং সে এটা ত্যাগ করতে বাধ্য হয়। সে তার পাওয়ার ধীরে ধীরে ফিরে পেতে শুরু এবং এভেঞ্জার্স তাকে পুনরায় গ্রহণ করে।
স্কারলেট উইচ যখন রিয়েলিটি চেঞ্জ করে তখন ক্যারোল ড্যানভার্স গুটিকয়েক ব্যক্তির মধ্যে ছিলো যাদের আগের ঘটনা মনেছিলো।ক্যাপটেন অ্যামেরিকা যখন তাকে ‘New Avengers’ টিমে যোগ দিতে বলে তখন ক্যারোল স্টিভকে এটি জানায় এবং বলে সে এখনই প্রস্তুত নয়। স্টিভ তাকে বুঝতে পারে এবং আশ্বাস দেয় যে তার জন্য এভেঞ্জার্সের দরজা সবসময় খোলা থাকবে। 🙂

Some must know facts about Carol Danvers –

*Carol Danvers has been labeled “Marvel’s biggest female hero”, a “feminist icon”,and “quite possibly Marvel’s mightiest Avenger”.

* She was ranked twenty-ninth in Comics Buyer’s Guide’s “100 Sexiest Women in Comics” list

*She was ranked #11 on IGN’s “Top 50 Avengers”.

*She was first brought to comics as a supporting character for Original Captain Marvel ( Mar-Vell)

*Carol worked as an editor of Women Magazine that she fought for equal rights for women in workplaces.

Infos :

Name : Carol Susan Jane Danvers

Species : Human-Kree Hybrid

Powers & Abilities :

As Ms.Marvel :Superhuman strength, speed,stamina,durability, Seventh Sense,Flight

As Binary : Control and manipulation of stellar energies, control over heat, the electromagnetic spectrum and gravity. Light speed travel and the ability to survive in the vacuum of space.

Team Affiliations :
A-Force
Alpha Flight Space Program
Avengers
“Defenders for a Day”
Guardians of the Galaxy
The Mighty Avengers
New Avengers
S.H.I.E.L.D.
Starjammers
Ultimates
United States Air Force
X-Men

First Appeared :

as Carol Danvers:Marvel Super-Heroes #13 (March 1968)

as Ms. Marvel:Ms. Marvel #1 (January 1977)

as Binary:Uncanny X-Men #164 (December 1982)

as Warbird:The Avengers #4 (May 1998)

as Captain Marvel:Avenging Spider-Man #9 (July 2012)

– ধন্যবাদ।

[review]

TankiBazzসুপারহিরো অরিজিনCaptain Marvel,Superhero Origin,সুপারহিরো অরিজিন
Superhero Origin : Captain Marvel - মারভেল কমিক্সের অন্যতম জনপ্রিয় ফিমেইল সুপারহিরো Superhero Origin : Ms Marvel / Captain Marvel 'What are we waiting for, an army of bad guys are just waiting to be smashed!' ক্যারল ড্যানভার্স aka Captain Marvel/Ms Marvel/Binary/Warbird মারভেল কমিক্সের অন্যতম জনপ্রিয় ফিমেইল সুপারহিরো। ১৯৬৮ সালের মার্চে Marvel...