“আমাদের স্বপ্নগুলো একেকটা মরিচিকার মতো,
এই আছে, এই নেই। একটা একটা স্বপ্নের সমষ্টিতে সুন্দর সুনিপুণভাবে জাল গড়ে তুলি কিন্তু একটুতেই সেই জাল ছিড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। সে যাই হোক, বেশি গভীরে চলে যাচ্ছি।”

Guardians of the Galaxy

স্বপ্নজাল মুভি রিভিউ

স্বপ্নজাল মিষ্টি সুন্দর এক বাস্তবতার গল্প। যেখানে ভালোবাসা, রাগ, হাসি কান্না, হিংসা, লোভের সুন্দর সংমিশ্রণ আছে। এমন গল্পের বাংলা ছবি এর আগে দেখিনি কখনো।

অপু (ইয়াশ) শুভ্রা (পরী) দুজনের দুষ্টু মিষ্টি ভালোবাসাটা দারুন উপভোগ্য ছিলো। সবচেয়ে বেশি ভালো লেগেছে লুকিয়ে লুকিয়ে ল্যান্ডফোনে প্রেম করাটা। একটা সময় অপু শুভ্রাকে নাচের ক্লাসে দেখতে গিয়ে মাটিতে পরে যায় আর তারপর ওদের ককথোপকথন,

অপু – কি?
শুভ্রা – দেখি তোমার হাতটা, তুমি এমন কেনো? (হাত কাটা দেখে)
অপু – আমি মজনু, আমি দিওয়ানা
শুভ্রা – ফাজিল
অপু – তবে সবচেয়ে বেশি ব্যথা কোথায় পেয়েছি জানো?
শুভ্রা – কোথায়?
অপু – পাছায়

এমন ছোট ছোট অনেক ভালো লাগা ছিলো পুরো স্বপ্নজাল জুড়ে। তবে সময় যত বারতে থাকে, ততই গল্পে বিরাজ করতে থাকে গম্ভিরতা। বাঁধা, দোটানা, বিচ্ছেদ সবকিছুই জরো হয়। তবে প্রথমার্ধ বেশি উপভোগ্য ছিলো, শেষার্ধে এসে মনে হয়েছে গল্প অনেকটা ঝুলে গিয়েছে, এছাড়া কিছু সংলাপ আনকোরা লেগেছে, সব মিলিয়ে উপভোগ করেছি।

শুভ্রা একটা ছড়া কাটে যেটা না বললেই নয়, এর মাঝে আছে ভালোবাসা, ক্রন্দন আর মায়া।

“আমার মনটাকে তোমার কাছে রেখে গেলাম
মনটাকে মোর বসতে দিও
মুড়ি মুড়কী খেতে দিও
জলের গ্লাস দেওয়ার ছলে, একটু শুধু ছুঁয়ে দিও”

অভিনয় – এই প্রথম পরীর অভিনয় দেখে মুগ্ধ হলাম, অনেক অনেক উন্নতি করেছে সে, ইয়াশ নতুন হিসেবে দারুন ছিলো আর যার কথা না বললেই না ফজলুর রহমান বাবু, নিজেকে কি করে ভাঙতে হয় উনি জানেন, চরিত্রের মাঝে একদম ঢুকে গিয়েছিলো আর প্রথমবার নেতিবাচক চরিত্রে তাকে আরো বেশি প্রাণবন্ত লেগেছে, এছাড়া ইরেশ জাকের, শাচ্চুসহ আরো যারা ছিলো তারা দারুন করেছে, ইয়াশের বোন আর পরীর ভাইয়ের চরিত্রে দুজনও খুব ভালো ছিলো। শুধুমাত্র পরীর মায়ের চরিত্রে যিনি ছিলেন উনাকে কেনো জানিনা ভালো লাগেনি একদম। কলকাতার কয়েকজন অভিনয় শিল্পী ছিলো তারা ভালো করেছে, অতিরিক্ত কিছু নেই।

গান – ছবিতে গান তেমন নেই বললেই চলে, আর গিয়াসউদ্দিন সেলিমের মনপুরার যেমন গান ছিলো, তেমন কিছুই স্বপ্নজালে পেলাম না। গান নিয়ে বড্ড হতাশ। হয়তো গানের জন্যই স্বপ্নজাল আলোচনায় থেকেও তেমন একটা সারা পায়নি।

সিনেমাটোগ্রাফি – প্রসংশনীয় সিনেমাটোগ্রাফি ছিলো। অসাধারণ, কিছু কিছু ফ্রেম ছিলো হাতে আঁকা ছবির মতো। একটা দৃশ্য আছে যেখানে শুভ্রারা কলকাতা চলে যাচ্ছে লঞ্চে করে, যেটা অপু পারে দারিয়ে দেখছিলো, লঞ্চ ছেরে দেওয়ার সাথে সাথে লঞ্চ যত সামনের দিকে অগ্রসর হচ্ছিলো শুভ্রা ততই অপুকে দেখার জন্য লঞ্চের অন্য মাথা থেকে পেছনের দিকে আসছিলো এই দৃশ্যটা ছিলো এক কথায় শিল্পীর আচড়।

সবমিলিয়ে স্বপ্নজাল একটি সুন্দর পরিচ্ছন্ন গল্পের বাংলা ছবি। আমি উপভোগ করেছি কিন্তু শেষটা আমার ভালো লাগেনি।

Swapnajaal” “স্বপ্নজাল”
ছবি – স্বপ্নজাল (বাংলাদেশ)
ভাষা – বাংলা
অভিনয় – ইয়াশ রোহান, পরীমনি, ফজলুর রহমান বাবু, ইরেশ জাকের, মিশা সওদাগর প্রমুখ
জনরা – রোমান্স, ড্রামা
পরিচালক – গিয়াসউদ্দিন সেলিম
দৈর্ঘ্য – ২ ঘন্টা ২৬ মিনিট
IMDb রেটিং – ৮.২/১০ (১৭৩)
ব্যক্তিগত রেটিং – ৭/১০

হ্যাপি ওয়াচিং✌

মুভি রিভিউ লিখেছেনঃ রিফাত আহমেদ

Swapnajaal (2018) দুটি প্রাণের বাঁধনহারা প্রেমাখ্যান “স্বপ্নজাল”TankiBazzবাংলাদেশী মুভি রিভিউSwapnajaal
'আমাদের স্বপ্নগুলো একেকটা মরিচিকার মতো, এই আছে, এই নেই। একটা একটা স্বপ্নের সমষ্টিতে সুন্দর সুনিপুণভাবে জাল গড়ে তুলি কিন্তু একটুতেই সেই জাল ছিড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। সে যাই হোক, বেশি গভীরে চলে যাচ্ছি।' স্বপ্নজাল মুভি রিভিউ স্বপ্নজাল মিষ্টি সুন্দর এক বাস্তবতার গল্প। যেখানে ভালোবাসা, রাগ, হাসি কান্না, হিংসা, লোভের সুন্দর সংমিশ্রণ আছে।...